অগ্ন্যুৎপাতের ভয়ংকর সুন্দর দৃশ্য ধারণ

বিজ্ঞাপন

বিশ্বের বিভিন্ন জায়গার আগ্নেয়গিরি থেকে অগ্ন্যুৎপাতের ভিডিও মাঝেমধ্যেই ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে এত কাছ থেকে মনে হয় কোনও অগ্ন্যুৎপাতের ভিডিও আগে ক্যামেরাবন্দি হয়নি। আইসল্যান্ডের এক অদ্ভুত সুন্দর অগ্নুৎপাতের ভিডিও প্রকাশ করলেন এক ইউটিউবার। আর ফেসবুকে ভিডিওটি পোস্ট হতেই ভাইরাল হতে সময় নেয়নি।

ইউটিউবার বর্ন স্টেনবেক, যিনি নিজেকে ‘এ গাই উইথ এ ড্রোন’ হিসাবে পরিচয় দেন, তাঁর ফেসবুক পেজে ভিডিওটি শেয়ার করেছেন। প্রথম ঝলকে দেখলে মনে হবে এটি কম্পিউটর গ্রাফিক্সে তৈরি কোনও ভিডিও। কিন্তু না, এটি একটি আসল ভিডিও যা বর্ন তাঁর ড্রোনের ক্যামেরায় রেকর্ড করেছেন। আর ড্রোনটিকে তিনি আগ্নেয়গিরির একেবারে মুখের কাছে নিয়ে চলে গিয়েছিলেন। এতটাই কাছে যে লাভা ক্যামেরার পাশ দিয়ে ছিটকে যেতে দেখা যাচ্ছিল।

সংবাদ সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, এটি আইসল্যান্ডের ফ্যাগ্রাডালসফল আগ্নেয়গিরি। আইসল্যান্ডের রাজধানী রেইকাজিক থেকে কিছুটা দূরে অবস্থিত এই আগ্নেয়গিরিটিতে সম্প্রতি অগ্ন্যুৎপাত শুরু হয়েছে। তারপর থেকে অনবরত লাল উজ্জ্বল লাভা উদগিরণ করে চলেছে। যার ফলে রাতের বেলা অনেক দূর ওই এলাকার আকাশ লাল হয়ে থাকতে দেখা যাচ্ছে। সেই ছবিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে। এমনকী ইউটিউবের একটি চ্যানেলে সরাসরি সম্প্রচার করা হচ্ছে এই অগ্ন্যুৎপাতের দৃশ্যের।

আইসল্যান্ডের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, এই আগ্নেয়গিরির অনেকটা দূর পর্যন্ত কোনও বসতি নেই। তাই অগ্ন্যুৎপাতের ফলে কারও হতাহতের কোনও খবর নেই। এবং অন্য আগ্নেয়গিরি থেকে যখন অগ্ন্যুৎপাত হয়, লাভার সঙ্গে কালো ধোঁয়া ছাই অনেক দূর পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে। কিন্তু এ ক্ষেত্রে তেমন কিছু দেখা যায়নি। ফ্যাগ্রাডালসফল আগ্নেয়গিরি থেকে শুধুই জ্বলন্ত তরল আগুনের মতো লাভা বেরিয়ে আসছে। একে বলে এফুসিভ ইরাপশন।

ইউরোপের মধ্যে আইসল্যান্ডেই সব থেকে বেশি সক্রিয় আগ্নেয়গিরি রয়েছে। প্রতি পাঁচ বছরেই কোনও না কোনও আগ্নেয়গিরি থেকে অগ্ন্যুৎপাত হয়। কোনও কোনও সক্রিয় আগ্নেয়গিরি আবার ৮০০-৯০০ বছর পরেও অগ্ন্যুৎপাত করেছে। তবে আইসল্যান্ডের মেটিওরলজিক্যাল বিভাগ কয়েক দিন ধরেই বুঝতে পারছিল ফ্যাগ্রাডালসফল আগ্নেয়গিরি থেকে অগ্ন্যুৎপাত শুরু হবে।

সূত্র: দ্যা টেলিগ্রাফ

বিজ্ঞাপন

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
Loading...
DMCA.com Protection Status