আড়াই মাসের সর্বনিম্ন আক্রান্ত ও মৃত্যুহারে বাংলাদেশ

বিজ্ঞাপন

গত ১০ এপ্রিলের পর টানা আক্রমণে বাংলাদেশে লাফিয়ে বেড়েছে করোনার আক্রান্ত ও মৃত্যু হার। ৮৪ দিন পর এই সংখ্যায় বড় ধ্বস নেমেছে। আক্রান্ত হিসেবে গত ১৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছে ৮৮৬ জন করোনা রোগী। যা গত ১০ এপ্রিলের পর সর্বনিম্ন আক্রান্ত।

গত ২৪ ঘণ্টায় ২২ জনের মৃত্যুর রেকর্ড করা হয়েছে। যা শনিবার (১ আগস্ট) ছিল ২১ জনে। এটিও গত ৭৪ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন মৃত্যুহার। মে মাসের ১৮ তারিখে সর্বাধিক ২১ জনের মৃত্যু হয়। এর পর মৃত্যু সংখ্যা আর কমেনি। উল্টো দিনের সর্বোচ্চ ৬৪ জনের মৃত্যুর রেকর্ড করতে থাকে। যা এখন ২২ জনে মেনেছে এসেছে।

রোববার (২ আগস্ট) দুপুরে স্বাস্থ্য সেবা অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক প্রফেসর ডা. নাসিমা সংবাদ সম্মেলনে জানান- গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন ৮৮৬ জন রোগী নিয়ে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এখন ২ লাখ ৪০ হাজার ৭৪৬ জন। আর ২২ মৃত্যু যোগ করে মৃত সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ১৫৪ জনে।

দেশে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনায় সংক্রমিত ব্যক্তি শনাক্তের ঘোষণা আসে। আর ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। এর পর মৃত্যু সংখ্যা ৪/৫ জন করে বাড়তে থাকলেও ১৮ মেতে এসে দৈনিক মৃত্যুর সে সংখ্যা ২১ জন হয়। এর বাড়তে থাকে মৃত্যু মিছিল। প্রায় আড়াইমাস মৃত্যুর মিছিল ভারি করে আসলেও ১ আগস্ট পর্যন্ত ৭৪ দিন পর মৃত্যু সংখ্যা কমে এসেছে ২১ জনে।

সম্প্রতি স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে দেশের করোনার প্রকোপ কমতে শুরু করেছে। যে কারণে মৃত্যু হার কমে আসতেছে। গত সপ্তাহ ধরে এই হার কমতে শুরু করেছে। একই সাথে কমেছে সংক্রমণের হারও।

শনিবার ২৪ ঘণ্টায় বাংলাদেশে সুস্থ হয়েছেন ৫৮৬ জন। আর মোট সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ১ লাখ ৩৬ হাজার ৮৩৯ জন।

জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্য মতে, বিশ্বজুড়ে মোট আক্রান্ত হয়েছে ১ কোটি ৮০ লাখ ৩৯ হাজার ৬৭ জন। আর মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৬ লাখ ৮৯ হাজার ১০০ জন। এছাড়া মোট সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে গেছেন ১ কোটি ১৩ লাখ ৩৯ হাজার ৬৭৫ জন।

#সংবাদ২৪/ঢাকা/মাহমুদ

বিজ্ঞাপন

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
Loading...
DMCA.com Protection Status