একাদশে ভর্তির সব আয়োজন অনলাইনে

বিজ্ঞাপন

করোনাভাইরাসে সৃষ্ট অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতির কারণে দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে স্কুল-কলেজসহ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এই সংক্রমণের ঝুঁকির মধ্যেই শুরু হতে যাচ্ছে একাদশ শ্রেণিতে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি কার্যক্রম। আর এবছর ভর্তি কার্যক্রমের সবকিছুই হবে অনলাইনে।

৯ আগস্ট শুরু হয়ে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে ভর্তির পুরো আয়োজনটি। ভর্তি সংক্রান্ত সকল তথ্য প্রতিটি শিক্ষাবোর্ডের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে।

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে চলতি বছর বেশকিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। এবছর ভর্তিতে মুক্তিযোদ্ধা, প্রবাসী ও বিকেএসপি থেকে কোটা দেওয়া হবে। ভর্তি প্রক্রিয়ায় জটিলতা ও ব্যয় কমাতে এসএমএসের মাধ্যমে আবেদন প্রক্রিয়া বাতিল করা হয়েছে। ভর্তি হতে অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন শিক্ষার্থীরা। এছাড়া আবেদন ফি ও ভর্তি ফি কিছুটা বাড়ানো হয়েছে।

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি নীতিমালায় বিশেষ কোটা হিসেবে পাঁচ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা, দশমিক পাঁচ শতাংশ বিকেএসপি এবং দশমিক পাঁচ শতাংশ প্রবাসী কোটা বহাল থাকছে। প্রবাসীদের সন্তান ভর্তির বিষয়ে সরাসরি বোর্ডে আবেদন করতে হবে।

রাজধানী ঢাকা এমপিওভুক্ত কলেজে এবার ভর্তি ফি নির্ধারণ করা হয়েছে পাঁচ হাজার টাকা। এছাড়া ঢাকার মধ্যে আংশিক এমপিওভুক্ত ও এমপিওবিহীন প্রতিষ্ঠানের বাংলা মাধ্যম ভর্তির জন্য ৯ হাজার ও ইংরেজি মাধ্যমের ভর্তি ফি ১০ হাজার টাকা দিতে হতে পারে। সব প্রতিষ্ঠানের জন্য উন্নয়ন ফি তিন হাজার টাকার বেশি করা যাবে না। প্রতিটি খাতে অর্থ আদায়ের ক্ষেত্রে রসিদ প্রদানের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

মফস্বল ও পৌর এলাকার জন্য ভর্তি ফি নির্ধারণ করা হয়েছে এক হাজার টাকা ও পৌর জেলা সদরে দুই হাজার টাকা। তবে ঢাকা ব্যতীত অন্যান্য মেট্রোপলিটন এলাকায় তিন হাজার টাকার বেশি নেওয়া যাবে না বলে খসড়ায় উল্লেখ করা হয়েছে।

ভর্তির ক্ষেত্রে ৯ আগস্ট থেকে ২০ আগস্ট পর্যন্ত প্রথম পর্যায়ের আবেদন করতে পারবে শিক্ষার্থীরা। https://www.xiclassadmission.gov.bd এই ওয়েবসাইটে গিয়ে আবেদন করতে হবে।

অনলাইন আবেদনে শিক্ষার্থীরা সর্বনিম্ন পাঁচটি এবং সর্বোচ্চ ১০টি কলেজ পছন্দ করতে পারবে। তবে এবারও আগের বছরের মতো আবেদন ফি ১৫০ টাকাই থাকছে। নগদ, সোনালী সেবা, টেলিটক, বিকাশ, শিওর ক্যাশ ও রকেটের মাধ্যমে টাকা পরিশোধ করতে পারবে শিক্ষার্থীরা।

প্রথম পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ফল প্রকাশ করা হবে ২৫ আগস্ট। ২৬ আগস্ট থেকে ৩০ আগস্ট রাত ৮টা পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের সিলেকশন নিশ্চায়ন করতে হবে। দ্বিতীয় পর্যায়ে আবেদন গ্রহণ ৩১ আগস্ট থেকে ২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে। দ্বিতীয় পর্যায় ও প্রথম মাইগ্রেশনের ফল প্রকাশ ৪ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায়। এই পর্যায়ের নিশ্চায়ন করা যাবে ৫ ও ৬ সেপ্টেম্বর।

তৃতীয় পর্যায়ের আবেদন গ্রহণ করা হবে ৭ ও ৮ সেপ্টেম্বর। এর ফল ও দ্বিতীয় মাইগ্রেশনের ফল ১০ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায় প্রকাশ হবে। এই পর্যায়ের নিশ্চায়ন করতে হবে ১১ ও ১২ সেপ্টেম্বর। কলেজভিত্তিক চূড়ান্ত ফল প্রকাশ হবে ১৩ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায়। আর ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে কলেজে ভর্তি হতে হবে।

উল্লেখ্য, গত ৩১ মে প্রকাশিত হয় এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল। এবারের পরীক্ষায় গড় পাসের হার ছিল ৮২ দশমিক ৮৭ শতাংশ। এ বছর প্রায় ১৭ লাখ শিক্ষার্থী এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পাস করেছে।

#সংবাদ২৪/এইচএ

বিজ্ঞাপন

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
Loading...
DMCA.com Protection Status