করন জোহরকে ‘মুভি মাফিয়া’ আখ্যা দিয়ে কঙ্গনার ক্ষোভ প্রকাশ

বিজ্ঞাপন

প্রতিবাদী হিসেবে সুনাম এবং দুর্নাম, ইন্ডাস্ট্রিতে দুইয়েরই ভাগীদার হয়েছেন কঙ্গনা রানাউত। সুশান্ত সিংহ রাজপুতের অকালমৃত্যুর পর তীব্র ভাষায় সোচ্চার হয়ে নিজের ভাবমূর্তি ধরে রেখেছেন পর্দার মণিকর্ণিকা।

স্বজনপোষণ প্রশ্নে বহুদিন ধরেই সোচ্চার কঙ্গনা। এর আগে সরাসরি তিনি করন জোহরকে অভিযুক্ত করেছিলেন। সেই টক শো’র অংশবিশেষ এখন ভাইরাল।

সেখানে কঙ্গনার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সাইফ আলি খানও। কথা প্রসঙ্গে কঙ্গনা বলেন, তার বায়োপিক হলে করন সেখানে থাকবেন ‘মুভি মাফিয়া’ হিসেবে। যিনি ইন্ডাস্ট্রিতে নবাগতদের কাজ করতে দেন না। তার মতে করনই যে বলিউডে স্বজনপোষণ নীতির ধারক ও বাহক, সে কথা প্রকাশ্যেই বলেন সিনেমার কুইন।

সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মৃত্যু নিয়েও কারও নাম না করে করন জোহর ও তার অনুগামীদের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছেন কঙ্গনা রানাউত।

সুশান্ত সিং রাজপুত

তার অভিযোগ, ‘কাই পো চে’, ‘এম এস ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’ এবং ‘ছিছোড়ে’র মতো ছবি করা সত্ত্বেও বলিউডে সুশান্তকে স্বীকৃতি দেয়নি।

স্বজনপোষণকারীরা সুশান্তকে ধর্তব্যের মধ্যেই আনতে চাননি। সেই হতাশা থেকেই এমন চরম পদক্ষেপ করতে বাধ্য হয়েছেন সুশান্ত, যা কার্যত খুনই, বলছেন কঙ্গনা।

নিজের ভেরিফায়েড ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে প্রায় দু’মিনিটের একটি ভিডিও পোস্ট করে কঙ্গনা বলেন, ‘সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মৃত্যু আমাদের নাড়িয়ে দিয়েছে। এর মধ্যেও কেউ কেউ অন্য যুক্তি দেওয়ার চেষ্টা করছেন। বলা হচ্ছে মানসিকভাবে দুর্বল ব্যক্তিরাই অবসাদগ্রস্ত হন এবং আত্মহত্যা করেন।’

কিন্তু সেই প্রসঙ্গে কঙ্গনার প্রশ্ন, যে ছেলে স্ট্যানফোর্ডের স্কলারশিপ পান, ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ট্রান্স পরীক্ষায় যিনি র‌্যাঙ্ক করেন, সেই ছেলের মস্তিষ্ক দুর্বল হয় কী করে?

নিজের অভিনয়ের মতো পর্দার বাইরেও সমান সাবলীল কঙ্গনা। স্পষ্টবক্তা হিসেবে পরিচিত এই নায়িকা মনে করেন, ইন্ডাস্ট্রিতে অসহায়তা কুরে কুরে দগ্ধ করছিল সুশান্তকে। ফলে অস্তিত্ব সংকটে ভুগতে থাকা অভিনেতা বাধ্য হন সোশ্যাল মিডিয়ায় খোলাখুলি আবেদন করতে। যাতে অনুরাগীরা তার ছবি দেখেন।

সুশান্তের অপমৃত্যুকে কার্যত খুন হিসেবেই দেখছেন কঙ্গনা। তার কথায়, ইন্ডাস্ট্রিতে নিজেকে উচ্ছিষ্ট বলে মনে করতেন সুশান্ত। মাত্র চৌত্রিশেই শেষ হয়ে যাওয়ার সঙ্গে কি এর কোনো সম্পর্ক নেই? জানতে চেয়েছেন কঙ্গনা।

কিন্তু কেন সুশান্তকে কোণঠাসা করা হয়েছিল বলে মনে করেন কঙ্গনা? ‘রিভলবার রানি’ ছবির অলকা সিংহের সাফ জবাব, বাইরে থেকে এসে, শুধু প্রতিভার জোরে নিজের জায়গা করে নিয়েছিলেন সুশান্ত। সেটা সহ্য হয়নি প্রভাবশালীদের।

তাই ‘কাই পো চে’ থেকে ‘ছিছোড়’ কোনো ছবিতেই, ক্যারিয়ারে প্রাপ্য স্বীকৃতি দেওয়া হয়নি সুশান্তকে। নবাগত বা প্রতিষ্ঠিত কোনো ভূমিকাতেই তিনি বাহবা পাননি।

শুধু সুশান্তকেই নয়। তাকেও একসময় আত্মহত্যার পথে ঠেলে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল। জাভেদ আখতারের বিরুদ্ধে এমনই বিস্ফোরক অভিযোগ আনেন কঙ্গনা। সে সময় হৃতিক তথা রোশন পরিবারের সঙ্গে তিক্ততা চরমে পৌঁছেছিল কঙ্গনার।

জীবনের সেই দুঃসময়ে তথাকথিত হিতৈষীরা তাকে আত্মহত্যার উসকানি দিতেন বলে দাবি কঙ্গনার। জাভেদ আখতার নাকি বলেছিলেন, ক্ষমা না চাইলে ক্ষমতাবান রোশন পরিবার তাকে জেলে পাঠাবে। তখন আত্মহত্যা করা ছাড়া কঙ্গনার আর পথ থাকবে না!


সংবাদ২৪/এসডি

বিজ্ঞাপন

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
Loading...
DMCA.com Protection Status