জাহাঙ্গীর জয়েস-এর ৩ টি কবিতা

বিজ্ঞাপন

  • ন্যায় বিচার

আসুন মহামান্য সেবকগণ-
সিংহের মতো কেশর ফুলানো মহান প্রভুদের হুকুম তামিল করার জন্যে নির্বিচারে লুণ্ঠন করতে গিয়ে যারা অনেক কষ্ট করেছে- তাদের পক্ষে ন্যায় বিচার নিশ্চিত করি!
যারা পতঙ্গের মতো ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দিয়েছিলো, গ্রাম-গঞ্জ- তাদের অনেক পরিশ্রম গিয়েছে- তাদের পক্ষে ন্যায় বিচার নিশ্চিত করি!

আসুন মহামান্য সেবকগণ-
দেশের জন্যে ধর্মের জন্যে জীবনের পরোয়া না করে যারা খুনকে নিজেদের আত্মার আগুনে পরিশুদ্ধ করে তুলেছিলো, যারা ধর্ষণকে করে তুলেছিলো মহিমান্বিত আর গণহত্যাকে দিয়েছিলো শিল্পের মর্যাদা- তাদের পক্ষে ন্যায় বিচার নিশ্চিত করি!

আসুন মহামান্য সেবকগণ-
যারা আর বেঁচে নেই তাদের মনে রাখার কোনো মানে হয়! যারা বেঁচে নেই- তারা ত্রিশলক্ষ হোক আর ত্রিশ কোটিই! তারচেয়ে যারা বেঁচে আছে আসুন সেই সব মহান পুরুষদের যথার্থ খেদমত করি- তাদের পক্ষে ন্যায় বিচার নিশ্চিত করি!

আসুন লুণ্ঠন করি, জ্বালিয়ে পুড়িয়ে ছারখার করে দেই, তাজা তাজা সবজির হাটের মতো খুনের হাট বসাই, কুকুরের মতো গণহত্যায় মেতে উঠি…

মহামান্য সেবকগণ নিশ্চয়ই আমাদের পক্ষে ন্যায় বিচার নিশ্চিত করবেন।

  • বিষকাঁটা

আমাদের যত্নেগড়া স্বপ্নগুলোও কখনো কখনো বিষকাঁটা হয়ে ওঠে :
আমাদের তুচ্ছ চাওয়া- পায়ে হাঁটা পথ, জলাশয় মেঘমুক্ত আকাশ কিংবা চায়ের কাপেও কারো কারো স্বেচ্ছাচারী হাসিতে ফুটে ওঠে রক্ত!

মিথ্যা মহিমায় আজ কোনো বিকার নেই
অপমানে, নির্যাতনে আজ কোনো বিকার নেই
অনাচারে, অবিচারে আজ কোনো বিকার নেই

আজ আনন্দ বিক্রয়মূল্যে : কতো বেশি দাম উঠলো; রঙিন পোশাকে আজ ঢেকে রাখি বিষকাঁটা!

  • সুদিন

একদিন সুদিন আসবে
মেহেদি পাতার মতো রঙিন হবে আমাদের জীবন পায়ে হাঁটা সব পথ কৃষ্ণচূড়া রাধাচূড়া ফুলে ফুলে
ছেয়ে যাবে…
নদীচরের বালুঘরের মতো ভেঙে পড়বে
শোষণের যতসব গুলাঘর
সমস্ত অস্ত্রকৌশল ভুলে যাবে দুনিয়া
শ্রম আর ঘামে কেবল বেড়ে ওঠবে ফুলের মাঠ
বৃক্ষ আর মিষ্টি রোদ্দুরে হেসে ওঠবে সমস্ত দুনিয়া…

বিজ্ঞাপন

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
Loading...
DMCA.com Protection Status