বোঝো নাই ব্যাপারটা?

বিজ্ঞাপন

মহামারি করোনাভাইরাস দেশে তাণ্ডব চালাচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞাসহ মানুষকে সচেতন করতে নানা নির্দেশনাও দেওয়া হচ্ছে সরকারের শীর্ষ পর্যায় থেকে শুরু করে বিভিন্ন সংগঠন থেকে। বলা হচ্ছে এই মহামারি থেকে বাঁচার জন্য আপাতত সবচেয়ে কার্যকর উপায় হচ্ছে মাস্ক ব্যবহার ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা। কিন্তু তাতে কে কার কথা শুনে?

তাই মাস্ক ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করতে কিছু ব্যতিক্রমী উদ্যোগও অনেক সময় চোখে পড়ে। তেমনি মনোযোগ আকর্ষণের জন্য রিক্সার পেছনে লাগানো সতেচনতামূলক কিছু নির্দেশনাও চোখে পড়েছে ঢাকা শহরে।

বিভিন্ন সিনেমা জনপ্রিয় ডায়লগ অনুসরণ করে পোস্টার ড্রয়িং করে দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করা হচ্ছে। সামাজিকমাধ্যমে এমন কিছু ছবিও শেয়ার করা হয়েছে। যা অনেকের কাছে প্রশংসনীয় মনে হয়েছে।

ফেসবুকে শেয়ার করা রিক্সার পেছনে লেখা আছে- ‘মাস্ক না পরলে করোনার ভেলকি লাগবে, বোঝো নাই ব্যাপারটা?’ চঞ্চল চৌধুরীর আয়নাবাজি সিনেমার জনপ্রিয় একটি ডায়লগকে এখানে অনুসরণ করা হয়েছে। এই পোষ্টারের মাস্ক পরা চঞ্চলের ছবি এঁকে আয়নাবাজির ‘আয়না’ লেখাও দেখা গেছে।

বিষয়টিকে ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখছেন আয়নাবাজ খ্যাত চঞ্চল চৌধুরীও। তিনি ছবিটি ফেসবুকে শেয়ার করে লিখছেন- হয়তো কোন একজন রিক্সা পেইন্টার, মানুষের মধ্যে করোনা সচেতনতা বাড়ানোর জন্য,‘আয়নাবাজি’র ‘আয়না’র ছবি এঁকে জনপ্রিয় এই ডায়লগটা ব্যবহার করেছেন।

তাঁর এই সামাজিক দায়িত্বশীল আচরণকে আমি শ্রদ্ধা জানাই। বাকি দায়িত্বটা আমাদের। আসুন আমরা সবাই করোনা সচেতন হই। এই মহামারী থেকে বাঁচার পথ একটাই “স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা”। নিজে সুরক্ষিত থাকুন,পাশের মানুষটিকে সুরক্ষিত রাখুন।

আরেকটি পোস্টারে লেখা আছে- ‘মতি মিয়া মাস্ক না পরে ঘুরছে। তাকে শাস্তি দেয়া প্রয়োজন- বড় চাচা।’ এরকম আরও কিছু পোস্টারও চোখে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেমন – ‘তোপসে, করোনার কেসটা মনে হচ্ছে বেশ গোলমেলে! আশ্চর্য লোকটি মাস্ক পরেনি কেন!- আনিস।’

রিকশার মধ্যে মাস্ক ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করতে এই প্রচারণা বেশ কার্যকর হবে বলে মনে করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। কারণ রিকশা সব শ্রেণীর মানুষের নাগালে থাকে তাই এই প্রচারণা সবার চোখে পড়বে।

আরেকটি কারণ হচ্ছে দৈনন্দিন চলার পথে লক্ষ্য করা যায় নিম্ন আয়ের মানুষের মধ্যে মাস্ক পরা নিয়ে সচেতনতা কম। করোনা সংক্রমণ তাদের কাবু করতে না পারলেও তাদের দ্বারা অনেকে সংক্রমিত হচ্ছেন ।

দেখা যায়- অনেকের মাস্ক থাকলেও সেটি দিয়ে নাক-মুখ ঢাকছে না। কেউ কেউ বলছেন, ময়লা হয়েছে তাই ফেলে দিয়েছি। কেউ বলেন, সামনের দোকানে গিয়ে কিনব। সবাই সচেতন হলে এরকম খোঁড়া অজুহাত কেউ দিত না। তাই রিকশার এই প্রচারণা তাদের আকর্ষিত করতে পারে।

আরএকে

বিজ্ঞাপন

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
Loading...
DMCA.com Protection Status