সর্বোচ্চ সংক্রমণে করোনা, কী পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার?

বিজ্ঞাপন

গত এক মাস ধরে দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েছে। সংক্রমণের সাথে বেড়েছে মৃত্যুর সংখ্যা। স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারণে সংক্রমণের ভয়াবহতা বেড়েছে বলে মনে করেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, সোমবার ২২ মার্চ সকাল পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ৮০৯ জন। একদিনে শনাক্ত গত ৭ মাসে সর্বোচ্চ। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুর সংখ্যা ৩০, গত আড়াই মাসে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু।

এদিকে সংক্রমণ বাড়ার কারণে সরকারের পক্ষ থেকে সর্বস্তরের মানুষকে বাইরে মাস্ক ব্যবহার, শারীরিক, সামাজিক দূরত্বসহ স্বাস্থ্যবিধি মানার জোর তাগিদ দেওয়া হচ্ছে। এরই মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ পুলিশ। সেনাবাহিনী নামানোর ব্যাপারেও ভাবছে সরকার।

বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণের সর্বোচ্চ হার ছিলো গত জুলাই মাসে। এ পর্যন্ত মাস হিসেবে মোট সংক্রমণের ২২ দশমিক ৪৬ ভাগ হয়েছে ওই মাসে। আর গত ফেব্রুয়ারি মাসে সর্বনিম্ন দুই দশমিক ৮২ ভাগ সংক্রমণ হলেও এখন তা আবার বাড়ছে। চলতি বছরের মার্চ মাসের প্রথম সাত দিনেই তা চারভাগ ছাড়িয়েছে। সর্বশেষ তা দশ শতাংশে দাঁড়িয়েছে।

এদিকে সংক্রমণ বাড়ার কারণ হিসেবে স্বাস্থ্যবিধি না মানাকে দায়ী করছে সরকার। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারণেই করোনার দৈনিক সংক্রমণ ২ থেকে ১০ শতাংশে উঠেছে। এ অবস্থায় জনগণের সহযোগিতা না পেলে সংক্রমণ কমানো সম্ভব নয়।

আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ায় হাসপাতালগুলোতে চাপ বাড়ছে। বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালের আইসিইউগুলোতে আসন সংকট দেখা দিচ্ছে৷ মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানেই বড় ধরনের এই পরিবর্তন দেখতে পাচ্ছেন চিকিৎসকরা। এমন পরিস্থিতিতে সরকার করোনার চিকিৎসা সম্প্রসারণের উদ্যোগ নিচ্ছে।

হঠাৎ সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় রোগীর চিকিৎসা নিয়ে নতুন করে ভাবতে হচ্ছে সরকারকে। সোমবার (২২ মার্চ) জরুরি চিকিৎসা সেবা দেওয়ার লক্ষে রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটে করোনা ইউনিট খোলা হয়েছে। দ্রুত সংক্রমিত রোগীর চিকিৎসা সেবা চালুর নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। একই সঙ্গে পরিস্থিতি মোতাবেক ব্যবস্থা নিতে রাজধানীতে আরও ৫টি হাসপাতালকে প্রস্তুত থাকতে বলেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ থেকে বার্ন ইন্সটিটিউটের পরিচালককে পাঠানো একটি চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘ক্রমাগত করোনা রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় বিদ্যমান করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের সম্প্রসারণ অপরিহার্য হয়ে পড়ায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটে করোনা সংক্রমিত রোগীর চিকিৎসা সেবা চালু করার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।’

এ বিষয়ে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের উপসচিব ড. বিলকিস বেগম স্বাক্ষরিত একটি চিঠি স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালককে পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে উল্লেখ করা ৫ টি স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে মিরপুরের লালকুঠি হাসপাতাল, বাবুবাজারের ঢাকা মহানগর হাসপাতাল, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও ফুলবাড়িয়ার সরকারি কর্মচারী হাসপাতাল।

স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দেশে করোনায় এ পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ লাখ ৭৩ হাজার ৬৮৭। মারা গেছে ৮ হাজার ৭২০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৭৫৪ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছে। এ নিয়ে সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫ লাখ ২৪ হাজার ১৫৯। গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫ হাজার ১১১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১১ দশমিক ১৯।

দেশে গত ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে অক্সফোর্ড-এ্যাস্ট্রাজেনেকার উদ্ভাবিত ও ভারতের সেরাম ইন্সটিটিউটে তৈরি করোনার টিকার গণপ্রয়োগ কার্যক্রম চলমান রয়েছে। শুক্রবার ও অন্যান্য ছুটির দিন বাদে প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত টিকাদান কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

#সংবাদ২৪/এলাহি

বিজ্ঞাপন

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
Loading...
DMCA.com Protection Status