সারাদেশে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট বন্ধের হুমকি

বিজ্ঞাপন

ইন্টারনেট খাতে ভ্যাট জটিলতা নিরসন করে গত ১ জুলাই থেকে শুরু হওয়া ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে ইন্টারনেটে ভ্যাট আরোপের পরিবর্তিত কাঠামোকে অর্ন্তভুক্ত করার অনুরোধ জানিয়েছে দেশের ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডারদের সংগঠন ‘আইএসপিএবি’। অন্যথায় সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে দেশজুড়ে কিছু সময়ের জন্য ইন্টারনেট বন্ধের হুমকি দিয়েছে তারা।

শনিবার (৪ জুলাই) এক অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে এ হুমকি দেয় সংগঠনটি। আইএসপিএবি সভাপতি আমিনুল হাকিম বলেন, ভ্যাট জটিলতার সমাধান না হলে সীমিত আকারে সারাদেশে ইন্টারনেট বন্ধ করার পরিকল্পনা নিয়েছি। দুই থেকে এক ঘণ্টা ইন্টারনেট বন্ধ রাখা হবে। তবে কবে কখন এই কর্মসূচি নেয়া হবে তা জানাননি তিনি।

আইএসপিএবি সভাপতি বলেন, করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও কর্মীদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি ও বিল আদায় ৪০ থেকে ৫০ শতাংশ কমে গেলেও ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো গ্রাহকদের নিরবচ্ছিন্ন সেবা দিয়ে আসছে। যোগাযোগ-প্রযুক্তি ছাড়াও বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষা ও চিকিৎসা, ব্যবসা-বাণিজ্যসহ বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ খাতে ইন্টারনেট কার্যকরী ভূমিকা রাখছে। করোনাকালে সরকারি-বেসরকারি সংবাদ সম্মেলন, অনলাইনে ক্রয়-বিক্রয় বিশেষ করে বাড়িতে বসে ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিভিন্ন সেবা গ্রহণ বিশেষ কার্যকরী উপায় হিসেবে চলমান আছে।

তিনি বলেন, ইন্টারনেটে ৫% ভ্যাট এবং ভ্যালু চেইনের অন্যান্য (আইটিসি, আইআইজি, এনটিটিএন) খাতে ১৫% আরোপিত ভ্যাট নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে সৃষ্টি হওয়া জটিলতার কারণে চলমান ইন্টারনেট সেবা কার্যক্রম ব্যাহত হতে পারে। ৫ শতাংশ ভ্যাট ইন্টারনেট গ্রাহক থেকে আদায় করে আইএসপি প্রতিষ্ঠানগুলো আর ১৫ শতাংশ ভ্যাট ভ্যালু চেইনের অন্যান্য খাত আইএসপিগুলো থেকে আদায় করে থাকে। এর ফলে ৫ শতাংশ ভ্যাট গ্রাহক থেকে আদায় করা হলেও আইটিসি, আইআইজি, এনটিটিএনকে ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট পরিশোধ করতে হচ্ছে। সবমিলে প্রায় ৩৫ শতাংশ ভ্যাট বাবদ খরচ দিতে হচ্ছে আইএসপিগুলোকে।

এ সময় তিনি ইন্টারনেট খাতে ৫% এবং ১৫% ভ্যাটের জটিলতা নিরসন ও আইএলডিসি, আইআইজি, এবং আইএসপি ইন্ডাস্ট্রিকে আইটিইএস ক্যাটাগরিতে অর্ন্তভুক্ত করতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

বিজ্ঞাপন

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
Loading...
DMCA.com Protection Status